মঙ্গলবার, ২০-আগস্ট ২০১৯, ১১:২৪ পূর্বাহ্ন
  • রাজনীতি
  • »
  • দ্বিধাবিভক্তি নয়, আমরা জাতিকে ঐক্যবদ্ধ করতে চাই : কর্নেল অলি 

দ্বিধাবিভক্তি নয়, আমরা জাতিকে ঐক্যবদ্ধ করতে চাই : কর্নেল অলি 

shershanews24.com

প্রকাশ : ১৬ জুলাই, ২০১৯ ১১:৫১ অপরাহ্ন

শীর্ষনিউজ, সিলেট: জাতীয় মুক্তি মঞ্চের আহ্বায়ক ও এলডিপির চেয়ারম্যান ড. কর্নেল (অব.) অলি আহমদ বীর বিক্রম বলেছেন, দ্বিধাবিভক্তি নয় আমরা জাতিকে ঐক্যবদ্ধ করতে চাই। কারণ, আমরা দ্বিধাবিভক্ত হলে বিদেশীরা তাদের স্বার্থ হাসিলের সুযোগ নেবে। তিনি বলেন, প্রতিহিংসার কারণে আজ বেগম খালেদা জিয়া কারাবন্দী। নির্দোষ খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে হবে।

কর্নেল অলি মঙ্গলবার বিকেলে সিলেট প্রেসক্লাব মিলনায়তনে জাতীয় মুক্তি মঞ্চের উদ্যোগে পুণঃ জাতীয় সংসদ নির্বাচন ও দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।


 সিলেট জেলা এলডিপির সভাপতি সায়েদুর রহমান চৌধুরী রূপার সভাপতিত্বে সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্যে রাখেন, জাতীয় মুক্তিমঞ্চের অন্যতম শীর্ষনেতা ও কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব.) সৈয়দ মোহাম্মদ ইব্রাহিম বীর প্রতীক, এলডিপির মহাসচিব বীর মুক্তিযোদ্ধা ড. রেদওয়ান আহমদ, জাগপার কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি রাশেদ প্রধান, এলডিপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব, শাহাদাত হোসেন সেলিম, সুনামগঞ্জ জেলা বিএনপির সাবেক সহ-সভাপতি শিক্ষাবিদ লে. কর্নেল (অব.) সৈয়দ আলী আহমদ, জাগপার কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব আসাদুর রহমান খান, সিলেট মহানগর জামায়াতের সহকারী সেক্রেটারী মোঃ শাহজাহান আলী, সিলেট জেলা জাগপার সভাপতি শাহজাহান আহমদ লিটন, মহানগর বিএনপির সহ-যোগাযোগ সম্পাদক উজ্জল রঞ্জন চন্দ।

সভায কর্নেল অলি আরো বলেন, আজ আমাদের ভোটের অধিকার নেই। সেই অধিকার আওয়ামী লীগ কেড়ে নিয়েছে। তাই জনগণের ভোটের ও বাঁচার অধিকার এবং সুশাসন ফিরিয়ে আনার লক্ষ্যে আমরা গঠন করেছি জাতীয় মুক্তি মঞ্চ। দেশপ্রেমিক সকলের জন্য এই মঞ্চ উন্মুক্ত। কোন গাদ্দার ও মোনাফেকদের মুক্তিমঞ্চে ঠাঁই দেয়া হবে না। আমাদের স্পষ্ট কথা হলো বিভীষিকাময় পরিস্থিতি থেকে জাতিকে মুক্ত করতে জাতীয় মুক্তি মঞ্চ হচ্ছে দেশপ্রেমিক জনতার ঐক্যবদ্ধ প্লাটফর্ম। দেশের প্রতিটি গ্রামে গ্রামে মুক্তি মঞ্চের আওয়াজকে পৌঁছে দিতে হবে। দেশপ্রেমিক জনতার ঐক্যকে সুসংহত করার মাধ্যমে জাতিকে মুক্ত করতে হবে।

তিনি বলেন, অনেকে জামায়াত নিয়ে প্রতিক্রিয়া দেখাতে চায়। বুঝে নিন তারা জাতির ঐক্য চায় না, মানুষের মুক্তির চায় না। এদের ব্যাপারে সজাগ থাকতে হবে।
 

মেজর জেনারেল (অব.) সৈয়দ মোহাম্মদ ইব্রাহিম বীরপ্রতীক বলেন, ২০ দলীয় জোটের সাথে আমাদের কোন বিভেদ নেই। জাতীয় মুক্তি মঞ্চ আলাদা প্লাটফর্ম হলেও ২০ দলীয় জোটের সাথে রয়েছে। ২০১৪ সালের নির্বাচন থেকে শুরু করে বিগত নির্বাচন পর্যন্ত আমাদেরকে জোট ছাড়তে অনেক লোভ দেখানো হয়েছে। কিন্তু আমরা যাইনি। কারণ, আমরা গাদ্দারী করতে রাজনীতিতে আসিনি।

ড. রেদওয়ান আহমদ বলেন, জাতীয় মুক্তিমঞ্চ- বিএনপি বা ২০ দলীয় জোটের প্রতিপক্ষ নয়। বরং একে অপরের পরিপূরক। বিএনপি বার বার ভুল পথে হাঁটার কারণে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া আজ কারাগারে এবং বাকশালী আওয়ামী লীগ পুনরায় ক্ষমতায়। বেগম খালেদা জিয়াকে ছাড়া নির্বাচনে না যাওয়ার সিদ্ধান্ত থাকলেও শেষ পর্যন্ত ২০ দলীয় জোটকে অক্ষুন্ন রেখে গঠিত ঐক্যফ্রন্ট নির্বাচনে অংশ নেয়। ফলে ড. কামালের কারিশমার কারণে গণফোরাম দুজন সংসদ সদস্য পেয়েছে। তারা কিভাবে বিজয়ী হয়েছে তা কারো অজানা নয়।

শীর্ষনিউজ/ওজি