মঙ্গলবার, ১৬-জুলাই ২০১৯, ১১:২০ অপরাহ্ন
  • খেলা
  • »
  • ধোনির কান্নায় সোশ্যাল মিডিয়ায় তোলপাড়

ধোনির কান্নায় সোশ্যাল মিডিয়ায় তোলপাড়

shershanews24.com

প্রকাশ : ১১ জুলাই, ২০১৯ ০৯:৪০ পূর্বাহ্ন

শীর্ষকাগজ ডেস্ক: নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে রান আউট হয়ে ফেরার পথে এমনই একটা ছবি ঘিরে ছড়িয়েছে জল্পনা। টিভিতে দেখা যায়, আউট হয়ে ধোনির মুখে হতাশা। মনে হচ্ছিল, তিনি হয়তো কাঁদছেন! এই দৃশ্য দেখেই টুইটারে ঝড়।

মনে করা হচ্ছে, এটাই ধোনির শেষ বিশ্বকাপ। এখনই তার ৩৮ বছর বয়স। চার বছর পরও ধোনি টিমে থাকবেন বলে মনে করা হচ্ছে না। তাই শেষ বিশ্বকাপ জিততে না পারার ব্যর্থতাতেই কি এই কান্না?

ধোনির এই 'কান্না'-র  ছবি দেখে পুরো সোশ্যাল মিডিয়াই তার পাশে দাঁড়িয়েছেন। কেউ লিখেছেন, 'চ্যাম্পিয়নরা কখনো কাঁদে না। তুমি আমাদের দুটি বিশ্বকাপ দিয়েছ। ' কারো লেখায়, ' আমরা তোমার সঙ্গে আছি। ' আবার কারো টুইট, 'তোমার কান্না দেখে আমরাও কাঁদছি।' অন্য টুইটে লেখা, 'আমাদের আনন্দ করার প্রচুর মুহূর্ত দিয়েছ তুমি। তাই কেঁদো না। '

ধোনিকে আবেগে ভেসে যেতে দেখা যায় না সাধারণত। সেখানে তার কান্না কিছুটা বিরল ছবি। তাই ধোনির এই ছবি ছুঁয়ে গিয়েছে সকলের হৃদয়। টুইটে তাই লেখা হয়েছে, '১২৫ কোটি মানুষ তোমার সঙ্গে আছে। '

ধোনির অবসর?

শোনা যাচ্ছিল বিশ্বকাপের মঞ্চকেই 'অবসর' ঘোষণার জন্য বেছে নেবেন ভারতের সাবেক অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনি। বুধবার ম্যাঞ্চেস্টারে নিউ জিল্যান্ডের কাছে বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে হারার পর, কোহলি সাংবাদিকদের মুখোমুখি হলে, স্বাভাবিক ভাবেই ধোনির অবসরের প্রশ্নটি সামনে আসে।

 

সাংবাদিকরা কোহলিকে প্রশ্ন করেন, সাবেক অধিনায়ক কি তার ভবিষ্যত্ পরিকল্পনা নিয়ে দলকে কিছু বলেছেন? বিরাটের সংক্ষিপ্ত উত্তর, 'না, কিছু বলেননি। '
প্রথম ১০ ওভারের মধ্যে ভারতের টপ-অর্ডার ৪ ব্যাটসম্যান আউট হওয়ার পরও কেন ধোনিকে না-পাঠিয়ে, হার্দিক পান্ডিয়াকে পাঠানো হলো, তা নিয়ে সাংবাদিকরা চেপে ধরেন অধিনায়ককে।

এমএস ধোনি এদিন ৭২ বলে ৫০ করে রান আউট হন। সবমিলিয়ে চলতি বিশ্বকাপে আট ইনিংসে করেছেন ২৭৩ রান। এদিনও ধোনির স্ট্রাইক রেট প্রসঙ্গ উত্থাপন করেন সাংবাদিকরা। জবাবে বিরাট বলেন, পরিস্থিতি অনুযায়ী ধোনি ব্যাট করেছেন। রবীন্দ্র জাডেজা অত্যন্ত ভালো খেলছিল। উলটো দিকে উইকেট ধরে রাখা প্রয়োজন ছিল। কারণ, ভুবনেশ্বর কুমার ছাড়া আর কোনো স্বীকৃত ব্যাটসম্যান ছিল না। ধোনি সেই কাজটিই করেছেন।

সূত্র : এই সময়

শীর্ষকাগজ/ওজি