সোমবার, ২২-জুলাই ২০১৯, ০২:২৭ পূর্বাহ্ন
  • প্রশাসন
  • »
  • এবার ইফার সচিবের কাছে ৩ দিনের ছুটি চেয়েছেন সামীম আফজাল

এবার ইফার সচিবের কাছে ৩ দিনের ছুটি চেয়েছেন সামীম আফজাল

shershanews24.com

প্রকাশ : ১৮ জুন, ২০১৯ ১০:২৯ অপরাহ্ন

শীর্ষকাগজ, ঢাকা: কর্মকর্তা-কর্মচারীদের আন্দোলন ও পদত্যাগের দাবির মুখে ৩ দিনের ছুটি চেয়েছেন ইসলামিক ফাউন্ডেশনের (ইফা) মহাপরিচালক (ডিজি) সামীম মোহাম্মদ আফজাল। মঙ্গলবার ইসলামিক ফাউন্ডেশনের সচিব কাজী নুরুল ইসলামকে নৈমত্তিক ছুটি ভোগের বিষয়টি অবহিত করেন তিনি। তবে ডিজির ছুটির বিষয়টিকে হাস্যকর হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন ইফা সচিব।

ডিজির পদত্যাগের দাবিতে মঙ্গলবার সকাল থেকে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের প্রধান কার্যালয়ে কর্মবিরতি শুরু করেন সংস্থাটির কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। ভেঙে পড়েছে সংস্থাটির ‘চেইন অব কমান্ড’। পরিস্থিতি সামাল দিতে পদত্যাগ না করে ইফার সচিবের কাছে তিন দিনের ছুটি চেয়েছেন সামীম মোহাম্মদ আফজাল।

জানা গেছে, ডিজি সামীম মোহাম্মদ আফজালের পদত্যাগের দাবিতে ইসলামিক ফাউন্ডেশন কার্যালয়ে কর্মকর্তা-কর্মচারীরা মঙ্গলবার সারা দিন অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছেন। এতে উপস্থিত ছিলেন ডিজির আস্থাভাজন কর্মকর্তা-কর্মচারী এবং তার আত্মীয়রাও। সুযোগ বুঝে এদের সবাই ডিজির পদত্যাগ চাইছেন।

এমনকি যিনি ডিজির পক্ষ হয়ে গুরুত্বপূর্ণ ফাইল সরানোর চেষ্টা করেছিলেন, সেই পরিচালকও এখন ডিজিকে ছেড়ে আন্দোলনকারীদের পক্ষে অবস্থান নিয়েছেন। মঙ্গলবার অবস্থান কর্মসূচিতেও অংশগ্রহণ করতে দেখা গেছে ডিজির ভাতিজা প্রডাকশন ম্যানেজার শাহ আলম, ভাগিনা রেযোয়ানুল আলম প্রমুখ।

ডিজি পদত্যাগ না করা পর্যন্ত কর্মসূচি চলবে বলে জানিয়েছেন আন্দোলনকারীদের নেতা পরিচালক মহীউদ্দিন মজুমদার। তিনি বলেন, ‘দ্বীনি এই প্রতিষ্ঠানে দুর্নীতিবাজ ডিজিকে আর প্রবেশ করতে দেয়া হবে না।’

এই পরিস্থিতিতে মঙ্গলবার প্রতিষ্ঠানটির সচিব কাজী নূরুল ইসলামের কাছে তিন দিনের ছুটি চেয়ে আবেদন করেন সামীম মোহাম্মদ আফজাল। যা নিয়মবর্হিভূত। কারণ মহাপরিচালক ছুটি চাইলে তা ধর্ম মন্ত্রণালয়ে পাঠাতে হবে। অতীতে তিনি তাই করেছেন বলে জানিয়েছেন ইফার সচিব কাজী নূরুল ইসলাম। তিনি বলেন, ‘ডিজি সাহেব ধর্ম মন্ত্রণালয়কে মানতে রাজি নন। এ কারণে তিনি এবার আমার কাছে ছুটি চেয়েছেন; যা হাস্যকর।’

এদিকে সোমবার ইফার ২০ পরিচালক প্রতিষ্ঠানটির সচিব কাজী নূরুল ইসলামের সঙ্গে বৈঠক করে ডিজির পদত্যাগ চাওয়ায় পরিস্থিতি আরও জটিল হয়েছে উঠেছে। এদের মধ্যে কমপক্ষে ৮ থেকে ১০ জন পরিচালক আছেন যারা ডিজি সামীম মোহাম্মদ আফজালের আস্থাভাজন।

মঙ্গলবার ডিজির আত্মীয়স্বজনরাও তার পদত্যাগের দাবিতে আন্দোলনরত কর্মকর্তা-কর্মচারীদের পক্ষে অবস্থান নিয়েছেন। তাদের দাবি ডিজি পদত্যাগ না করা পর্যন্ত কর্মসূচি চলবে।

সোমবার উদ্ভূত পরিস্থিতিতে ইফার পরিচালক ও প্রকল্প পরিচালকদের নিয়ে করণীয় ঠিক করতে জরুরি বৈঠকে বসেন প্রতিষ্ঠানটির সচিব কাজী নূরুল ইসলাম। ২০ জন পরিচালকের উপস্থিতিতে বৈঠক চলে রাত ৮টা পর্যন্ত। বৈঠকে তিনটি সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

এক. ইসলামিক ফাউন্ডেশনের ভাবমূর্তি অক্ষুণ্ণ রাখার স্বার্থে প্রতিষ্ঠানের অচলাবস্থা দূর করতে এবং ডিজির শারীরিক অবস্থা বিবেচনায় তাকে (ডিজি) স্বেচ্ছায় অব্যাহতি নেয়ার জন্য অনুরোধ করা হবে।

দুই. প্রতিষ্ঠানের কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে পরিচালনার স্বার্থে অবিলম্বে বোর্ড অব গভর্নরসের জরুরি বৈঠক আহ্বান করা হবে।

তিন. ইফার চেইন অব কমান্ড ফিরে আনতে সংশ্লিষ্ট সব মহলের সহযোগিতা কামনা করা হবে।

উল্লেখ্য, ক্ষমতার অপব্যবহার ও স্বেচ্ছাচারিতার অভিযোগে ১০ জুন ইফা ডিজিকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেয় ধর্ম মন্ত্রণালয়। তার চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ বাতিলের জন্য ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে কেন অবহিত করা হবে না তা ৭ কার্যদিবসের মধ্যে ধর্ম মন্ত্রণালয়কে লিখিতভাবে জানাতে বলা হয়।

ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মসজিদ মার্কেট বিভাগের পরিচালক মুহাম্মদ মহিউদ্দিন মজুমদারকে সাময়িকভাবে বরখাস্তের আদেশকে কেন্দ্র করে এই শোকজের ঘটনা ঘটে। সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, পদত্যাগের সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করে ডিজি নির্ধারিত সাত কর্মদিবসের মধ্যে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের শোকজেরও জবাব দিতে পারেন।

এ জন্য একটি জবাবের খসড়া ডিজির আস্থাভাজন কর্মকর্তারা তৈরি করে রেখেছেন। এই শোকজের ঘটনাকে কেন্দ্র করে ধর্ম প্রতিমন্ত্রী ও ইফা ডিজির মধ্যে যে তিক্ততা ও বিরোধের সৃষ্টি হয়েছে সে বিষয়ে সমঝোতার পথ খুঁজছেন ডিজি।
শীর্ষকাগজ/এসএসআই